কপোতাক্ষ নদ

     মাইকেল মধুসূদন দত্ত 

সতত, হে নদ , তুমি পড় মোর মনে ! 

সতত তোমার কথা ভাবি এ বিরলে; 

সতত ( যেমতি লোক নিশার স্বপনে 

শোনে মায়া-মন্ত্রধ্বনি ) তব কলকলে 

জুড়াই এ কান আমি ভ্রান্তির ছলনে !

বহু দেশে দেখিয়াছি বহু নদ-দলে, 

কিন্তু এ স্নেহের তৃষ্ণা মেটে কার জলে? 

 দুগ্ধ-স্রেতোরূপী তুমি জন্মভূমি-স্তনে । 

আর কি হে হবে দেখা ?- যত দিন যাবে, 

প্রজারূপে রাজরূপ সাগরেরে দিতে 

বারি-রূপ কর তুমি; এ মিনতি, গাবে 

বঙ্গজ জনের কানে, সখে, সখা-রীতে 

নাম তার , এ প্রবাসে মজি প্রেম-ভাবে 

লইছে যে তব নাম বঙ্গের সংগীতে । 

শব্দার্থ টীকা : সতত সর্বদা । বিরলে একান্ত নিরিবিলিতে । নিশারাত্রি । ভ্রান্তিভূল । বারিরূপকরপ্রজা যেমন রাজাকে কর বা রাজস্ব দেয়, তেমনি কপোতাক্ষ নদও সাগরকে জলরূপ কর বা রাজস্ব দিচ্ছে । চতুর্দশপদী কবিতাইংরেজিতে Sonnet, বাংলায় চতুদর্শপদী কবিতা। চেীদ্দ-চরন-  সমন্বিত ভাবসংহত সুনির্দিষ্ট । চতুর্দশপদী কবিতার প্রথম আট চরণের স্তবককে অষ্টক( Octave ) এবং পরবর্তী ছয় চরনের স্তবকে ষষ্টক ( Sestet) বলে । অষ্টকে মূলত ভাবের প্রবর্তনা এবং ষষ্টকে ভাবের পরিণতি থাকে । চতুদর্শপদী কবিতায় কয়েক প্রকার অন্ত্যমিল প্রচলিত আছে । যেমন, প্রথম আট চরন: কখখক  কখখক । শেষ ছয় চরণ “ ঘঙচ ঘঙচ । অথবা প্রথম আট চরন : কখখগ কখখগ, শেষ ছয় চরণ : ঘঙঘঙ চচ । “ কপোতাক্ষ নদ “ একটি চতুদর্শপদী কবিতা । এখনে মিলবিন্যাস: কখকখকখখক গঘগঘগঘ । 

পাঠ পরিচিতি: “ কপোতাক্ষ নদ “ কবিতাটি কবির চতুর্দশপদী কবিতাবলী থেকে গৃহীত হয়েছে । এই কবিতায় কবির স্মৃতিকাতরতা আবরণে তার অত্যুজ্জ্বল দেশপ্রেমী প্রকাশিত হয়েছে । কবি যশোর জেলার কপোতাক্ষ নদের তীরে সাগরদাঁড়ি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন । শৈশবে মধুসূদন এই নদীর তীরে প্রাকৃতিক পরিবেশে বড় হয়েছেন । যখন তিনি ফ্রান্সে বসবাস করেন , তখন জন্মভূমির শৈশব-কৈশোরের বেদনায়-বিধুর স্মৃতি তার মনে জাগিয়েছে কাতরতা । দূরে বসেই তিনি যেন কপোতাক্ষ নদের কলকল ধ্বনি শুনতে পান । কত দেশে কত নদ-নদী তিনি দেখেছেন , কিন্তু জন্মভূমির এই নদ যেন মায়ের স্নেহডোরে তাকে বেঁধেছে , কিছুতেই তিনি তাকে বলতে পারেন না । কবির মনে সন্দেহ জাগে , আর কি তিনি এই নদের দেখা পাবেন ! কপোতাক্ষ নদের কাছে তার সুবিনয় মিনতি -বন্ধুভাবে তাকে তিনি স্নেহাদরে যেমন স্মরণ করেন , কপোতাক্ষও যেন একই প্রেমভাবে তাঁকে সস্নেহে স্মরণ করে । কপোতাক্ষ নদ যেন তার স্বদেশের জন্য হৃদয়ের কবিতায় বঙ্গবাসীদের নিকট ব্যক্ত করে । 

Post Author: showrob

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

+ 48 = 57