জীবন সঙ্গীত

  হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় 

বলো না কাতর স্বরে        বৃথা জন্ম এ সংসারে 

                    এ জীবন নিশার স্বপন ,

দারা পুত্র পরিবার,           তুমি কার কে তোমার

                   বলে জীব করো না ক্রন্দন;

মানব-জনম সার,              এমন পাবে না আর 

                  বাহ্যদৃশ্যে ভুলো না রে মন; 

করো যত্ন হবে জয় ,           জীবাত্মা অনিত্য নয়, 

                 ওহে জীব কর আকিঞ্চন । 

করো না সুখের আশ,           পরো না দুঃখের ফাঁস, 

                 জীবনের উদ্দেশ্য তা নয় , 

সংসারে সংসারী সাজ,           করো নিত্য নিজ কাজ, 

                ভবের উন্নতি যতে হয় । 

দিন যায় ক্ষণ যায় ,                 সময় কাহারো নয় , 

              বেগে ধায় নাহি বহে স্থির , 

সহায় সম্পদ বল ,                    সকলি ঘুচায় কাল , 

              আয়ু যেন শৈবালের নীর । 

সংসারে-সমরাঙ্গনে                  যুদ্ধ কর দৃঢ়পণে, 

              ভয়ে ভীত হইও না মানব; 

কর যুদ্ধ বীর্যবান,                    যায় যাবে যাক প্রাণ 

            মহিমাই জগতে দুর্লভ 

মনোহর মূর্তি হেরে,               ওহে জীব অন্ধকারে, 

             ভবিষ্যতে করো না নির্ভর; 

অতীত সুখের দিন,               পু:ন আর ডেকে এনে, 

          চিন্তা করে হইও না কাতর । 

মহাজ্ঞানী মহাজন               যে পথে করে গমন , 

          হয়েছেন প্রাত:স্মরনীয়, 

সেই পথ লক্ষ্য করে             স্বীয় কীর্তি ধ্বজা ধরে 

           আমরাও হব বরণীয় 

সমর-সাগর-তীরে,                পদাঙ্ক অঙ্কিত করে 

          আমরাও হব হে অমর; 

সেই চিহ্ন লক্ষ করে ,              অন্য কোনো জন পরে , 

             যশোদ্ধারে আসিবে সত্বর । 

করো না মানবগণ ,                 বৃথা ক্ষয় এ জীবন , 

             সংসার-সমরাঙ্গন মাঝে, 

সঙ্কল্প করেছে যাহা,                 সাধন করহ তাহা, 

               রত হয়ে নিজ নিজ কাজে । 

শব্দার্থ ও টীকা : কাতর স্বরে – দুর্বল কন্ঠে,  করুণভাবে । দারা – স্ত্রী । বাহ্যদৃশ্যে – বাইরের জগতের চাকচিক্যময় রূপে বা জিনিসে । জীবাত্মা- মানুষের আত্মা, আত্মা যদিও অমর , কিন্তু মানুষের মৃত্যু অনিবার্য , কাজেই দেহ ছেড়ে আত্মা একদিন চলে যাবে,  চিরকাল দেহকে আঁকড়ে থাকতে পারবে না । অনিত্য – অস্থায়ী, যা চিরকালের নয় । আকিঞ্চন – চেষ্টা , আকাঙ্ক্ষা ।আশ- আশা । ভবের – জগতের , সংসারের । সমরাঙ্গনে – যুদ্ধক্ষেত্রে ( কবি মানুষের জীবনকে যুদ্ধক্ষেত্রে সঙ্গে তুলনা করেছেন ) । বীর্যবান – শক্তিমান । মহিমা – গৌরব । প্রাতঃস্মরণীয় – সকাল বেলায় স্মরণ করার যোগ্য , অর্থাৎ সকলের শ্রদ্ধা ও সম্মানের পাত্র । ধ্বজা – পতাকা,  নিশান । বরণীয় – সম্মানের যোগ্য । সংসারে-সমরাঙ্গনে – যুদ্ধক্ষেত্রে সাহসী সৈনিক এর মত সংসার ও নানা ঘাত-প্রতিঘাতের মোকাবেলা করে বেঁচে থাকতে হবে । স্বপন – রাতের স্বপ্নের মতোই মিথ্যা বা অসার । আয়ু যেন শৈবালের নীর – শেওলার ওপর পানির ফোঁটার  মতো ক্ষণস্থায়ী । 

পাঠ-পরিচিতি : আমাদের জীবন কেবল নিছক স্বপ্ন নয় । কাজেই এ পৃথিবীকে শুধু স্বপ্ন ও মায়ার জগত বলা যায় না । স্ত্রী-পুত্র-কন্যা এবং পরিজনবর্গ কেউ কারো নয় , একথাও ঠিক নয় । মানব-জন্ম অত্যন্ত মূল্যবান । মিথ্যা সুখের কল্পনা করে দুঃখ বাড়িয়ে লাভ নেই তা আমাদের জীবনের উদ্দেশ্যও নয় । সংসারে বাস করতে হলে সাংসারিক দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে হবে । কেননা বৈরাগ্যে মুক্তি নেই । আমাদের জীবন যেন শৈবালের শিশির বিন্দুর মতো ক্ষণস্থায়ী । সুতরাং মানুষকে এ পৃথিবীতে সাহসী যোদ্ধার মত সংগ্রাম করে বেঁচে থাকতে হবে । মহাজ্ঞানী ও মহা ব্যক্তিদের পথ অনুসরণ করে আমাদের কেউও বরণীয় হতে হবে । কেননা জীবন তো একবারেই ।

” জীবন সঙ্গীত “ কবিতাটি মার্কিন কবি “ Henry Wadsworth Longfellow “ – ( ১৮০৭-১৮৮২ ) এর “ A psalm of life “ শীর্ষক ইংরেজি কবিতার ভাবানুবাদ । 

Post Author: showrob

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

66 − 60 =